উন্নয়ন প্রকল্পের অব্যবহৃত টাকা করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য বরাদ্দ হচ্ছে

0
187

দেওয়ানবাগ প্রতিবেদক: উন্নয়ন প্রকল্পের বরাদ্দকৃত অব্যবহৃত টাকা করোনা পরিস্থিতির প্রভাব কমাতে সামাজিক নিরাপত্তায় খরচ করা হবে বলে জানা গেছে। সম্প্রতি পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের পাঠানো এক চিঠি থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

চলতি অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) ১ হাজার ৬৩০ কোটি টাকা বিশেষ উন্নয়ন সহায়তার নামে থোক বরাদ্দ আছে। এর মধ্যে স্থানীয় মুদ্রায় ৮৩১ কোটি টাকা এবং বিদেশি সহায়তা হিসেবে ৭৯৯ কোটি টাকা আছে। এই টাকা বছরের যেকোনো সময়ে জরুরি প্রয়োজনে খরচের জন্য এডিপি বিশেষ উন্নয়ন সহায়তা হিসেবে বরাদ্দ রাখা হয়। সাধারণত জরুরিভাবে নতুন প্রকল্প নেওয়া হলে এই তহবিল থেকে বরাদ্দ দেওয়া হয়। কিংবা প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে কোনো প্রকল্প নিতে হলে বরাদ্দ দেওয়া হয়।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, থোক বরাদ্দের টাকার ব্যবহারও শুরু হয়ে গেছে। ইতিমধ্যে ১ হাজার ১২৭ কোটি টাকার কোডিভ-১৯ ইমার্জেন্সি রেসপন্স অ্যান্ড প্যানডেমিক প্রিপার্ডনেস নামে নতুন একটি প্রকল্প সম্প্রতি প্রাক-অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ওই প্রকল্পে বিশ্বব্যাংকের ঋণে পাওয়া ১০ কোটি ডলার (৮৫০ কোটি টাকা) বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। বাকি টাকা সরকারের থোক বরাদ্দের তহবিল থেকে গেছে।

এদিকে অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে কৃচ্ছতা সাধনের চিঠিতে অপ্রয়োজনীয় গাড়ি কেনা, বিদেশ ভ্রমণসহ বিভিন্ন কম গুরত্বপূর্ণ খাতে অর্থ খরচ না করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গত মার্চ মাসের দ্বিতীয়ার্ধ থেকে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ শ্লথ হয়ে গেছে। করোনার প্রাদুর্ভাবের আগেই এডিবির আকার ২ লাখ ১৫ হাজার কোটি টাকা থেকে কমিয়ে ১ লাখ ৯২ হাজার ৯২১ কোটি টাকা করা হয়েছে। ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত মাত্র ৮০ হাজার ১৪৩ কোটি টাকা খরচ হয়েছে।

কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে বাকি টাকার পুরোটা খরচ সম্ভব হবে না, এটা প্রায় নিশ্চিত। তাই এডিপির অব্যবহৃত টাকা করোনা মোকাবিলায় বিভিন্ন প্রকল্প ও সামাজিক নিরাপত্তায় খরচ করার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে। প্রধানমন্ত্রী সম্প্রতি সেই ঘোষণাও দিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here