করোনা পরিস্থিতি:ব্যবসায়ীদের যে ৫ প্রস্তুতি আবশ্যক

1
437

তাকী মোহাম্মদ জোবায়ের

সারাবিশ্বের পাশাপাশি বাংলাদেশেও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে উল্লেখযোগ্য হারে। এই পরিস্থিতি আরও মারাত্মক হয়ে উঠতে পারে; বৈশ্বিক পরিস্থিতি অন্তত সেই বার্তাই দিচ্ছে। তাই এই সময়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারী, তাদের পরিবার এবং স্থানীয়দের সুরক্ষিত রাখতে এবং ব্যবসা নিরাপদ রাখার জন্য আতঙ্কিত না হয়ে প্রস্তুতি নিতে হবে।

বৈশ্বিক ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠানগুলোর করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলার প্রস্তুতি ও পদক্ষেপ বিশ্লেষণ করে আমরা আপনাকে ৫টি সহজ প্রস্তুতি নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছি:

১. সংবাদের নির্ভরযোগ্য উৎস থেকে আপডেট থাকুন:

করোনা ভাইরাসের চেয়েও দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে গুজব। তাই করোনা সম্পর্কিত তথ্যগুলোর জন্য নির্ভরযাগ্য নামী উৎসগুলির দিকে তাকান। ফেসবুক, ইউটিউবের গুজব থেকে দূরে থাকুন। ব্যবসায়ীদের জন্য সরকারি নির্দেশনা ও গাইডলাইন সম্পর্কে আপডেট থাকুন ও কঠোরভাবে মেনে চলুন। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা ব্যবসায়ীদের জন্য একটি নীতিমালা আপলোড করেছে তাদের ওয়েবসাইটে এবং এগুলো নিয়মিত আপডেট হচ্ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনাগুলো অনুসরণ করুন।

২. আপনার কর্মীদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করুন

মহামারির সময় গুজব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে এবং বাংলাদেশেও সেটা ভয়ঙ্করভাবে হচ্ছে। তাই কর্মীরা যাতে আতঙ্কিত হয়ে না পড়ে সেজন্য তাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করুন এবং তাদেরকে সঠিক তথ্য সরবরাহ করার ব্যবস্থা নিন। আপনি যে কোনো গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পাওয়ার সাথে সাথে আপনার অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সেই আপডেট জানিয়ে দিন এবং কর্মচারীদের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ রক্ষা করুন। আপনাকে মনে রাখতে হবে, আপনার কর্মীরা যে কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য আপনার ওপর নির্ভর করে।

কর্মীদের সঙ্গে আপৎকালীন সময়ে যোগাযোগ রক্ষা করা ও তাদেরকে আপডেট রাখার জন্য জনপ্রিয় স্যোসাল মিডিয়া প্লাটফর্মগুলো (হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক ইত্যাদি) ব্যবহার করুন এবং সবাইকে সেই প্লাটফর্মে সংযুক্ত করুন। সবাইকে তাদের প্রশ্নগুলো করার সুযোগ দিন এবং এর যথাযথ উত্তর দিন। কারণ সঠিক এবং স্পষ্ট তথ্য না পেলে কর্মীরা আরও বেশি আতঙ্কিত হয়ে পড়বে। তাদেরকে ইতিবাচক রাখুন, আশার বাণী শোনান। পরিস্থিতি মোকাবিলায় আপনার পরিকল্পনার কথা তাদেরকে খুলে বলুন। সবার মাঝে সহযোগিতা ও সহমর্মিতা বজায় রাখুন।

৩. কোন পথে আগানো সম্ভব, নতুন করে ভাবুন

এটা একটি আতঙ্কজনক সময়। চাপ বেশি, এটা সত্য। কিন্তু এর অর্থ এই নয় যে আমাদের সকলকে দরজা বন্ধ করে বসে থাকতে হবে। কিভাবে এই সমস্যা কাটিয়ে ওঠা সম্ভব তা পুনর্বিবেচনা করতে হবে। নতুন পথে নতুন সম্ভাবনার জন্য এখন আমাদেরকে পূর্বের ধারণা থেকে বের হতে হবে। ব্যবসা পরিচালনা, গ্রাহক সেবা, অংশীদারিত্ব, কর্মসংস্থান এবং আরও অনেক কিছুর জন্য নতুন উপায় খুঁজে বের করতে হবে। গতকালের দেয়ালে নিজেকে সীমাবদ্ধ করবেন না।

অনেক প্রতিষ্ঠিত উদ্যোক্তা এটা বলেছেন, যে কোনও পরিস্থিতির একটা অন্তহীন সম্ভাবনা রয়েছে। আপনার সৃজনশীলতা, প্রতিভা ও উদ্ভাবনী ক্ষমতাকে মূলধন হিসেবে গ্রহণ করে বর্তমান চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে এগিয়ে যান।

৪. আপনার গ্রাহকদের প্রয়োজনের প্রতি সংবেদনশীল হোন

আপনার গ্রাহকদের প্রয়োজনের প্রতি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিন। গ্রাহকদের প্রয়োজন পূরণ করার জন্য নতুন উপায় খুঁজে বের করুন। বর্তমান সমস্যাটিকে আপনার ব্যবসা এবং আপনার প্রতিষ্ঠানের সম্পর্কে গ্রাহকদের অভিজ্ঞতা উন্নত করার সুযোগ হিসাবে দেখুন। আপনি আয়ের নতুন পথ খুঁজে বের করুন।

বর্তমান পরিস্থিতিতে আপনার কর্মীদের মতো গ্রাহকরাও উদ্বিগ্ন। তাদের সাথে যোগাযোগ করুন। তাদের কথা শুনুন। গ্রাহকদের চাহিদা ও অভিজ্ঞতা জানার জন্য এটা একটা ভালো সুযোগ। আপনার গ্রাহকদের প্রয়োজন মেটানোর জন্য নতুন নতুন পথ আবিষ্কার করুন।

৫. দ্রুত ভার্চুয়াল ব্যবস্থাপনায় যান

ভার্চুয়াল অফিস এখন বৈশি^ক বাস্তবতা। অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চাইলে অনেক আগেই ভার্চুয়াল অফিস স্থাপন করতে পারতো। তাহলে তাদের বর্তমান সমস্যায় পড়তে হতো না। আপনাকে এখন নতুন করে ভাবতে হবে; প্রস্তুতি নিতে হবে। অফিসের প্রায় প্রতিটি কাজ বাড়ি থেকে করা যায়। এখনই এই ব্যবস্থা সেট আপ করুন। অনেক নামি-দামি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভার্চুয়াল জগতে বাঁচে, খায়, ঘুমায় এবং নিঃশ্বাস নেয়।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here