জেনে নিন উইন্ডোজ ১০-এর কিছু বিশেষ ফিচার

0
194

প্রযুক্তি ডেস্ক: বর্তমানের বহুল ব্যবহৃত জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেম উইন্ডোজ ১০। এর রয়েছে নানান চমৎকার ফিচার (বৈশিষ্ট) যা না জানার কারনে এর সুবিধাগুলো থেকে অনেকেই বঞ্চিত হচ্ছেন । আজ জানবো তেমনই কিছু প্রয়োজনীয় ফিচার ।  

স্টার্ট মেনু

 Windows 8.1 এ গায়েব হয়ে যাওয়া স্টার্ট মেনু আবার ফিরে এসেছে উইন্ডোজ ১০-এ। কিন্তু এই বারের স্টার্ট মেনু কিন্তু উইন্ডোজ ৭ বা তার পেছনের সংস্করণগুলোর মত না। উইন্ডোজ ১০-এর স্টার্ট মেনুতে থাকছে অনেক নতুন এবং আকর্ষণীয় ফিচার। অসাধারY স্টার্ট মেনু থাকছে উইন্ডোজ ১০-এর সাথে। আমরা ১ নাম্বার এ দেখতে পাচ্ছি যে এতে এক্সপান্ড অপশন আছে, যার মাধ্যমে আমরা স্টার্ট মেনুটি কে ফুল স্ক্রীন করতে পারব ঠিক ৮.১-এর মত। এছাড়াও আছে লাইভ টাইলস। রয়েছে Most Used অ্যাপস লিস্ট! আরো আছে অল অ্যাপস লিস্ট। ব্যবহারকারী সার্চ অপশন ব্যবহারের মাধ্যমে সার্চ করতেও সক্ষম হবেন ।

করটানা

 উইন্ডোজ ১০-এর আরো একটি নতুন ফিচার হলো করটানা। করটানা হলো আপনার বাক্তিগত সহায়িকা। করটানা ব্যবহার করতে চাইলে স্টার্ট বার এ অবস্থিত করটানা আইকনটিতে ক্লিক করতে হবে। অথবা আপনি Voice ব্যবহার করেও করটানা ব্যবহার করতে পারেন। নিচের মত করে সেটিং পরিবর্তন করুন এবং শুধু মাত্র বলুন “Hey Cortana”। আপনার করটানা সয়ংক্রিয়ভাবে চালু হয়ে যাবে। এখন করটানাকে আপনার যা ইচ্ছা তা বলে সার্চ করতে বলুন, সে সার্চ করে দেবে। এটি আসলেই চমৎকার একটি ফিচার। যাদের উইন্ডোজ ফোন আছে তারা এই সার্ভিসটি উপভোগ করেছেন নিশ্চয়। তবে উইন্ডোজ ১০-এর করটানা কে আরো উন্নত করা হয়েছে।

আইকন, অ্যাপ উইন্ডো

 উইন্ডোজ ১০-এর আইকনে অনেক পরিবর্তন আনা হয়েছে। তাছাড়া আমরা দেখতে পাচ্ছি যে মেট্রো অ্যাপসগুলো উইন্ডোজ ১০-এ উইন্ডো নিয়ে খুলছে এবং উইন্ডো সাইজ কমা বাড়ার সাথে আইকন অটোমেটিক জেনারেট হবে।

নোটিফিকেশন সেন্টার

 Windows 10-এর Notification Center-এ অনেক পরিবর্তন আনা হয়েছে। Notification Center থেকে আপনি VPN, Display, GPS, Tablet Mode ইত্যাদি নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন। Tablet Mode উইন্ডোজ ১০ এর নতুন একটি ফিচার। উইন্ডোজ ১০ এর UI কে Touch করার উপযোগী করে তৈরি করা হয়েছে।  Tablet Mode-এ ক্লিক করলে সব অ্যাপস এবং উইন্ডো গুলো ফুল স্ক্রীন হয়ে যাবে। যা Tablet এ ব্যবহারের উপযোগী।

নতুন টাস্ক ভিউ

 উইন্ডোজ ১০-এ যোগ করা হয়েছে নতুন টাস্ক ভিউ অপশন। যার মাধ্যমে খুব সহজে আপনি মাল্টি টাস্কিং করতে পারবেন। স্টার্ট বার থেকে টাস্ক ভিউ নামক অপশন টিতে ক্লিক করে আপনি এই সুবিধাটি নিতে পারবেন। তাছারাও আছে মাল্টি Desktop Use-এর সুবিধা।

নতুন অ্যাপস

 উইন্ডোজ ১০-এ Default ভাবে কিছু নতুন অ্যাপস যোগ করা হয়েছে। তার মধ্যে Photo App, Video App, Music App অন্যতম। নতুন ফটো অ্যাপস-এর মাধ্যমে ফটো ভিউ করা ছাড়াও আপনি বিভিন্ন ডেট এ অ্যালবাম ভিউ দেখতে পাবেন। তাছাড়া আপনি ফটো বিবরন ও  দেখতে পাবেন। তাছাড়া উইন্ডোজ ১০ ৮কে ভিডিও সমর্থন করবে।

উইন্ডো ইন্টারফেস এবং এনিমেসন

 উইন্ডোজ ১০-এ উইন্ডো ইন্টারফেস এবং এনিমেসন এ অনেক ভিন্নতা আনা হয়েছে। উইন্ডো বডার গুলো চিকন করা হয়েছে এবং Close, Minimize, Maximize অপশনগুলো আগের তুলনায় বড় করা হয়েছে। তাছাড়া Close, Minimize, Maximize ইত্যাদি করার সময় Fade In, Fade Out, Zoom In ইত্যাদি Animation যোগ করা হয়েছে।

এক্সবক্স

উইন্ডোজ ১০ গেম প্রেমিদের জন্য বেশ জনপ্রিয় হতে পারে| কেননা উইন্ডোজ ১০-এর আর একটি আকর্ষণ হলো এক্সবক্স নামে ভিডিও গেমিং কনসোল। হাইএণ্ড গেম খেলার জন্য এক্সবক্স হয়ে উঠছে জনপ্রিয় প্লাটফর্ম । তাই এই সুবিধা পেতে বিশেষ করে গেমাররা দ্রুতই ঝুঁকছে উইন্ডোজ ১০-এ ।  

নতুন ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার

 উইন্ডোজ ১০-এ যোগ করা হয়েছে নতুন ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার। যা আপনার ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ব্যবহারে এনে দেবে নতুন অভিজ্ঞতা। এতে আছে Reading Mode, Safe Browsing Mode, Integration with Cortana, Rendering Agent. তাছাড়া Windows 10-এ Internet Explorer Extension Support করবে যা ব্যবহারকারীদের দেবে নানান বিশেষ সুবিধা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here