দেশের বাণিজ্য ঘাটতি কমেছে রেকর্ড পরিমাণে

0
310

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক: চলতি (২০২০-২১) অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে বহির্বিশ্বের সঙ্গে বাংলাদেশের পণ্য বাণিজ্যে ঘাটতি কমেছে। মূলত আমদানি কমে যাওয়া এবং রফতানি ও রেমিট্যান্স প্রবাহ ইতিবাচক থাকায় এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

১ সেপ্টেম্বর ২০২০-২১ অর্থবছরের জুলাই মাসের বৈদেশিক লেনদেনে চলতি হিসাবে ভারসাম্যের (ব্যালেন্স অব পেমেন্ট) তথ্য প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

২০২০-২১ অর্থবছর প্রথম মাসে পণ্য-বাণিজ্যে ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ৮ কোটি ৬০ লাখ মার্কিন ডলার। আগের বছর অর্থাৎ ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম মাসে এই ঘাটতি ছিল ১৬০ কোটি ১০ লাখ ডলার।

বাংলাদেশ পণ্য রফতানি করে যে পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে, পণ্য আমদানির জন্য তার চেয়ে বেশি বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয় করতে হয় বলে বাণিজ্যে ঘাটতি দেখা দেয়।

আলোচ্য সময়কালে পণ্য রফতানি করে বাংলাদেশ আয় তার আগের বছরের তুলনায় দশমিক ৮৪ শতাংশ বেশি হয়েছে। বিপরীতে পণ্য আমদানির ব্যয় বেড়েছে ১৯ শতাংশের বেশি। দেশের অভ্যন্তরে বিনিয়োগের চাহিদা কম থাকায় আমদানি চাহিদাও কম ছিল। আমদানি ব্যয় অত বাড়েনি। তবে দেশের প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স প্রবাহ চাঙ্গা থাকায় বাণিজ্য ঘাটতি কমে গেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, জুলাই মাসে ইপিজেডসহ রফতানি খাতে বাংলাদেশ আয় করেছে ৩৮২ কোটি ৬০ লাখ ডলার। এর বিপরীতে আমদানি বাবদ ব্যয় কমেছে ৩৯১ কোটি ২০ লাখ ডলার। সেই হিসাবে অর্থবছরের প্রথম মাসে বাণিজ্য ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ৮ কোটি ৬০ লাখ ডলার। ঘাটতির এ অঙ্ক আগের অর্থবছরের চেয়ে প্রায় ৯২ শতাংশ কম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here