নরওয়ের রূপকথা-নীল গেইম্যান

0
245

অনুচ্ছেদ ৩
পৃথিবী একটা সমতল চাকতি। সমুদ্র তার চতুর্দিক ঘিরে আছে। দানবরা বাস করে পৃথিবীর শেষ প্রান্তে গভীর সমুদ্রের ধারে।

দানবদের দূরে রাখতে ওডিন, ভিলি আর ভি ইমিরের চোখের পাপড়ি দিয়ে পৃথিবীর মাঝখান ঘিরে তৈরী করল এক উঁচু দেয়াল। তারা জায়গাটার নাম দিল মিডগার্ড।

মিডগার্ড ছিল নয়নাভিরাম কিন্তু তার তৃণভূমিতে কেউ হেটে বেড়াত না, স্বচ্ছ সলিল জলে কেউ মাছ ধরত না, সুউচ্চ পাহাড়গুলোতে কেউ চড়ত না, আকাশে ভেসে বেড়ানো মেঘের দিকে তাকিয়ে থাকার জন্য কেউ ছিল না।

ওডিন, ভিলি আর ভি জানত, পৃথিবীটা পৃথিবী হয়ে উঠবে না, যদি না সেখানে কেউ বাস করে। তারা জনমানবের খোঁজে উচ্চভূমিতে তাকাল, খুজল নিম্নভূমিতে, কিন্তু কাউকে খুঁজে পেল না। শেষ পর্যন্ত দূর সমুদ্রের ধারে তারা দুই খন্ড কাঠের গুড়ি দেখতে পেল, যেগুলো সমুদ্রের ঢেউয়ে ভেসে ভেসে তীরে আছড়ে পড়েছিল।

প্রথম গুঁড়িটি ছিল এশ গাছের। এশ গাছ স্থিতিস্থাপক, দেখতে সুন্দর আর তার শিকড় মাটির অনেক গভীরে যায়। এর কাঠ সহজে খোদাই করা যায়, সহজে চিড় ধরে না বা ভেঙ্গে যায় না।

দ্বিতীয় গুড়িটি যেটি প্রথম গুড়ির খুব কাছাকাছি পড়ে ছিল, ছিল এলম গাছের। এলম গাছ দেখতে কমনীয় কিন্তু এর কাঠ দিয়ে দারুণ শক্ত তক্তা আর খুটি তৈরী করা যায়। তুমি এলম কাঠ দিয়ে চমৎকার ঘরবাড়ি তৈরী করতে পারবে।

দেবতারা কাঠের গুড়িগুলো তুলে নিল, সেগুলোকে সোজা করে দাঁড় করাল, উচ্চতায় সেগুলো মানুষের মতো দেখতে হলো। ওডিন গুড়িগুলোর উপর তার হাত রাখল। একে একে তাদের মধ্যে প্রাণের সঞ্চার করল। সেগুলো তখন আর মৃত কাঠের গুড়ি থাকল না, তারা জীবন্ত মানুষে পরিণত হলো।

ভিলি তাদের ইচ্ছেশক্তি দিলো, দিলো বুদ্ধিমত্তা আর উদ্যম। তখন তারা চলতে ফিরতে সক্ষম হলো।
ভি গুড়িগুলোকে আকৃতি দিলো, মানুষের আকৃতিতে খোদাই করল; সে কান খোদাই করল, যাতে তারা শুনতে পারে; চোখ দিলো, যাতে তারা দেখতে পারে; ঠোট বানাল, যাতে তারা কথা বলতে পারে।

কাঠের গুড়ি দুটি সমুদ্র সৈকতে দাঁড়িয়ে ছিল, দুই আদিম মানুষ। ভি তাদের একজনকে পুরুষ বানিয়েছেন, আরেকজনকে নারী।

পৃথিবীর শেষ প্রান্তে সমুদ্র সৈকতে দাঁড়িয়ে থাকা দুই মানব মানবীকে নোনা জলের ঝাপটা থেকে রক্ষা করার জন্য এবং উষ্ণ রাখার জন্য দেবতা ভাইয়েরা পোষাক বানিয়ে তাদের ঢেকে দিলো।

সবশেষে তারা তাদের বানানো মানুষ দুজনের নাম দিলো। পুরুষটির নাম দিলো আস্ক অর্থাৎ এশ গাছ, নারীটির নাম দিলো এম্বলা অর্থাৎ এলম।

আস্ক আর এম্বলা আমাদের আদি পিতা মাতা। সকল মানব মানবীর পূর্বসূরি তারা। তুমি যদি পিছনে যেতে থাক, দেখবে তোমার বংশলতিকা আস্ক আর এম্বলা পর্যন্ত পৌঁছেছে।

আস্ক আর এম্বলা মিডগার্ডে বাস করতে লাগল, ইমিরের চোখের পাপড়ি দিয়ে দেবতা ভাইদের বানানো দেওয়ালের ভিতর, দানবদের থেকে নিরাপদ দূরত্বে। মিডিগার্ডে তারা ঘর বানালো গভীর সমুদ্রের বিপদ আর দৈত্য-দানবের থেকে সুরক্ষিত থেকে। মিডিগার্ডে বাস করে তারা সুখে শান্তিতে তাদের সন্তানদের লালনপালন করতে লাগল।

ওডিনকে বলা হয় বিশ্বপিতা কারণ সে সকল দেবতাদের পিতা, কারণ সে আমাদের দাদার দাদার দাদার… দাদার ভিতর জীবন ফুঁকে দিয়েছিল। সকল মানুষ আর দেবতা, ওডিন আমাদের সকলের পিতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here