নারী ফুটবলে ১০০ গোলের রেকর্ড সাবিনার

0
15


নারী ডেস্ক: দেশের নারী ফুটবলের আলোচিত নাম সাবিনা। নারী ফুটবল দলের বর্তমান অধিনায়ক সাবিনা খাতুন। তার হাত ধরে গত দশ বছরে দেশের নারী ফুটবল এগিয়েছে অনেকদূর। নারী ফুটবলের অনেক রেকর্ডও তার গড়া। পেয়েছেন গোলমেশিন উপাধিও। সব ধরনের ফুটবলে ৩৭১ গোল করেন সাবিনা। তবে মেয়েদের ফুটবল লিগে শততম গোলের মাইলফলক ছুঁয়েছেন গত ২০ জুন সদ্য পুস্করিণী যুব স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে। সাবিনা খাতুনের জন্ম সাতক্ষীরায়। বাবা মো. সৈয়দ গাজী ও মা মমতাজ বেগম। পরিবারের চতুর্থ সন্তান সাবিনা।


২০০৭ সাল থেকে খেলছেন ফুটবল। তখন অষ্টম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় সাতক্ষীরা জেলা ফুটবল কোচ আকবরের মাধ্যমেই ফুটবলে হাতেখড়ি তার। এরপর স্কুল পর্যায়ে আন্তঃস্কুল ও আন্তঃজেলা পর্যায়ে ভালো খেলে ডাক পান জাতীয় দলে। ২০০৯ সালে অভিষেক হয় জাতীয় নারী ফুটবল দলে। ভারত ও মালদ্বীপের ঘরোয়া লিগে খেলে এখন স্বপ্ন দেখছেন ইউরোপের লিগে খেলার। খেলায় কাউকে অনুসরণ করেন কিনা- এমন কথা জিজ্ঞেস করতেই বলেন, ‘ওইভাবে কাউকে অনুসরণ করি না। নিজের মতোই খেলার চেষ্টা করি। আমি চাই মানুষ আমাকে সাবিনা নামেই চিনুক। তবে ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার মার্তার খেলা ভালো লাগে। আর ফ্রি কিক নেওয়ার ক্ষেত্রে মেসিকে অনুসরণ করি। তার মতো ফ্রি কিক নেওয়ার চেষ্টা করি।’


রেকর্ড গড়া হয় ভাঙার জন্য। এটা মনে করিয়ে সাবিনার ১০০ গোলের রেকর্ড সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার এমন রেকর্ড বাংলাদেশের নারী ফুটবলারদের জন্য একটা অনুপ্রেরণা। এখন যারা ফুটবল খেলছে এবং সামনে যারা আসবে, তারা এই রেকর্ড ভাঙার চেষ্টা করবে। এই মাইলফলক অনেক বড় পাওয়া আমার জন্য। গোল আরও করতে চাই। গোলের রেকর্ড এমন এক জায়গায় নিয়ে যেতে চাই যেন অন্য কেউ সেই রেকর্ড ভাঙতে না পারে! ‘ জাতীয় নারী ফুটবল দলেন কোচ গোলাম রাব্বানি সাবিনার এই অর্জনে বলেন, ‘সাবিনা সেরা ফুটবলারদেরই একজন। খুবই পরিশ্রমী ও খেলার ব্যাপারে ত্যাগী এক যোদ্ধা। ১০০ গোলের কীর্তি অনেক বড় অর্জন। আশা করি, সাবিনা দেশের ফুটবলকে আরও এগিয়ে নেবে এবং নিজের রেকর্ড আরও সমৃদ্ধ করবে।’


নিজের গোল রেকর্ডের কথা মনে করিয়ে দিতেই সাবিনা বলেন, ‘আসলে আমার গোল করার ক্ষমতা আল্লাহ প্রদত্ত। যখন ফুটবল খেলতে শুরু করি, তখন থেকেই নিয়মিত গোল করছি। গোলের এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখার চেষ্টা করছি। মাঠে নামলে আমি গোলের জন্য মুখিয়ে থাকি। তখন আমার লক্ষ্যই থাকে গোল করা। যখনই বল পাই, চিন্তা করি যেন গোলের সুযোগ নষ্ট না হয়। তবে গোল করলে যেমন ভালো লাগে আবার গোল করতে না পারলে খারাপও লাগে। নিজেকে তখন দুর্ভাগা মনে হয়।’


ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ফুটবল মিলিয়ে ৩৭১টি গোল করেছেন সাবিনা। এসব গোলের মধ্যে সেরা গোলের কথা জানতে চাইলে সাবিনা বলেন, ‘২০১০ সাফ ফুটবলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে করা গোলটিই সেরা আমার কাছে। মাঝমাঠ থেকে বল টেনে নিয়ে ডিফেন্ডারদের কাটিয়ে গোলটা দিয়েছিলাম।’
৫ ফুট ৫ ইঞ্চি উচ্চতার এই গোলমেশিনের মাঠে অবস্থান থাকে ফরোয়ার্ডে। জাতীয় দলে তার জার্সি নম্বর ১০ হলেও বসুন্ধরা কিংসে ১১ নম্বর জার্সি নিয়ে খেলছেন তিনি। সাতক্ষীরা জেলা দল দিয়ে তার ফুটবল ক্যারিয়ার শুরু ২০০৯ সালে। এরপর বাংলাদেশ ভিডিপি, শেখ জামাল, ঢাকা মোহামেডান, বিজেএমসি, মালদ্বীপ প্রতিরক্ষা বাহিনী ও সেতু এফসি হয়ে বর্তমানে খেলছেন বসুন্ধরা কিংসের হয়ে।


সাবিনার স্বপ্নজুড়েই ফুটবল। দেশের নারী ফুটবলকে অনন্য এক উচ্চতায় নিয়ে যেতে চান স্বপ্নবাজ সাবিনা। আগামীর স্বপ্নের কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের মেয়েরা এখনও সাফ গেমসে চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি। দলে থাকা অবস্থায় দেশকে সাফ চ্যাম্পিয়ন করাটাই এখন প্রথম স্বপ্ন। এই স্বপ্নের বাস্তবায়ন হবেই! আমি মেয়েদের ফুটবল নিয়েও খুব আশাবাদী। কারণ ছেলেদের ফুটবলের চেয়ে মেয়েদের ফুটবল এখন অনেকটা এগিয়ে। এটা মেয়েদের পারফরম্যান্স বা খেলার মান বিবেচনা করলে যে কেউ বুঝতে পারবেন।’ এ ছাড়া সাবিনা খেলতে চান ইউরোপের ক্লাবে। দেশের বাইরের বিভিন্ন ক্লাবে খেললেও ইউরোপে খেলাটা তার কাছে এখনও স্বপ্ন। হয়তো অচিরেই তার সেই স্বপ্নের বাস্তবায়ন দেখবেন দেশের ফুটবলপ্রেমীরা!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here