বাঙালি মুসলমানের অনুভবে মহররম

0
130

মহররম শব্দের অর্থ পবিত্র, সম্মানিত, নিষিদ্ধ ইত্যাদি। পহেলা মহররম হিজরি নববর্ষ। ৬২২ খ্রিস্টাব্দে হযরত রাসুল (সা.)-এর মদিনায় হিজরতের দিন থেকে হিসাব করে খলিফা ওমর (রা.)-এর শাসনামলে হিজরি সাল প্রবর্তিত হয়। হযরত রাসুল (সা.)-এর ওফাতের সপ্তম বার্ষিকীতে হিজরতের ১৭তম বর্ষে এ গণনা শুরু হয়ে আজো তা অব্যাহত আছে।
অন্যদিকে মহররম মাস এক অনন্য উচ্চতায় পৌঁছেছে, ৬১ হিজরির ১০ মহররম (১০ অক্টোবর ৬৮০ খ্রি.) কারবালার যুদ্ধে ইমাম হোসাইন (রা.)-এর শাহাদতের বেদনার্ত ঘটনায়। অন্যায়-অসত্য, অপশাসন-অধার্মিকতার বিরুদ্ধে হোসাইন (রা.) অবস্থান নেওয়ায় ইয়াজিদের বাহিনী তাঁকে বিশ্বাসঘাতকতার টোপে ফেলে কুফায় অতর্কিত আক্রমণ করে। ইমাম হোসাইন (রা.) ওই অসমযুদ্ধে আপস বা আত্মসমর্পণ না করে বীরের মতো লড়াই করেন এবং সপরিবারে শাহাদতের অমিয় সুধা পান করে জানিয়ে দেন- ‘অন্যায়ের মধ্যে বেঁচে থাকাও অন্যায়।’ তাই মহররম ন্যায় ও সত্যের আবাহনে বলে-
‘ত্যাগ চাই, মর্সিয়া ক্রন্দন চাহি না’
(কাজী নজরুল ইসলাম)।


বাঙালির অনুভবে মহররম ও মীর মশাররফ হোসেনের (১৮৪৭-১৯১১ খ্রি.) বিষাদ সিন্ধু জনপ্রিয়তায় অবিস্মরণীয় ও ঘরে ঘরে সমাদৃত। কল্পনা ও নির্মাণশৈলীতে বিষাদ সিন্ধুর সাহিত্যিক মূল্য অনস্বীকার্য হলেও কাহিনি ও বাস্তবতার যথেষ্ট অমিল বিষাদ সিন্ধুর ‘কারবালার পর’ অধ্যায়ের বর্ণনা লক্ষ করে মহাকবি কায়কোবাদের (১৮৫৭- ১৯৫১) মতে এটা ঐতিহাসিক সত্য থেকে বিচ্যুতি তথা ‘ইসলামের হৃদয়-পিঞ্জরে তীব্র শেলাঘাত’। অন্যদিকে কায়কোবাদের ‘মহররম শরীফ’ বা আত্মবিসর্জন রচনায় মহররমের আরেক করুণ মূর্চ্ছনা শোনা যায় :
‘সেই মহামরু? হেরিলে যাহারে
অশ্রু ঝরে দুনয়নে কেঁদে ওঠে প্রাণ?
সংকলিত

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here