বিশ্বজুড়ে কমেছে এশিয়ায় বাড়ছে

0
366

অনলাইন ডেস্ক: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং পূর্ব-ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল ব্যতীত বিশ্বজুড়ে এই ভাইরাসে সংক্রমণ এবং মৃত্যুর গতি ধীর হয়েছে। সোমবার রাতে বৈশ্বিক করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে সংস্থাটি। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আমেরিকা এখনো সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলের মধ্যে রয়েছে। গত সপ্তাহে বিশ্বজুড়ে করোনায় ৩৯ হাজার ২৪০ জনের প্রাণহানি ঘটেছে; যার ৬২ শতাংশই আমেরিকায়। একই সঙ্গে বিশ্বজুড়ে গত সপ্তাহে করোনায় আক্রান্তদের প্রায় অর্ধেকই যুক্তরাষ্ট্রের।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, গত ২৩ আগস্ট শেষ হওয়া সপ্তাহে বিশ্বজুড়ে করোনায় ১৭ লাখের বেশি মানুষ সংক্রমিত এবং ৩৯ হাজারের বেশি মারা গেছেন। এতে দেখা গেছে, বিশ্বজুড়ে আগের সপ্তাহের তুলনায় ৪ শতাংশ সংক্রমণ ও ১২ শতাংশ মৃত্যু হ্রাস পেয়েছে। করোনায় দ্বিতীয় ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চল রয়েছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া। এক সপ্তাহে এই অঞ্চলে করোনায় সংক্রমণ এবং মৃত্যু বেড়েছে যথাক্রমে ২৮ ও ১৫ শতাংশ। এই অঞ্চলের বেশির ভাগ সংক্রমণ এবং মৃত্যু ঘটছে ভারতে। তবে দ্রুতগতিতে ভাইরাসটির বিস্তার ঘটছে নেপালেও। জাতিসংঘের স্বাস্থ্যবিষয়ক এই সংস্থার বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলে করোনা সংক্রমণ আগের সপ্তাহের তুলনায় ৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে এই অঞ্চলে করোনায় মৃত্যু টানা ছয় সপ্তাহের মতো কমে এসেছে। আগের সপ্তাহের তুলনায় লেবানন, তিউনিশিয়া ও জর্ডানে সংক্রমণ সর্বোচ্চ বৃদ্ধি পেয়েছে। ডব্লিউএইচও বলছে, আফ্রিকা মহাদেশজুড়ে করোনায় সংক্রমণ এবং মৃত্যু গত সপ্তাহে যথাক্রমে ৮ এবং ১১ শতাংশ হারে কমেছে। আলজেরিয়া, কেনিয়া, ঘানা, সেনেগাল এবং দক্ষিণ আফ্রিকায় সংক্রমণ কমে এসেছে। ইউরোপীয় অঞ্চলে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ টানা তিন সপ্তাহ ধরে বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে গত সপ্তাহে এই অঞ্চলে সংক্রমণ মাত্র ১ শতাংশ কমেছে। ইউরোপে করোনায় মৃত্যু ধারাবাহিকভাবে হ্রাস পেয়েছে। পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে করোনায় নতুন সংক্রমণ কমেছে ৫ শতাংশ। প্রাণঘাতী করোনার প্রকোপ এই অঞ্চলের জাপান, অস্ট্রেলিয়া, সিঙ্গাপুর, চীন এবং ভিয়েতনামে কমছে। তবে ব্যতিক্রম রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া; দেশটিতে গত সপ্তাহে করোনা সংক্রমণ ১৮০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। ভারতে সুস্থতার হার ৭৫ শতাংশের বেশি : ভারতে করোনায় সংক্রমণ যেমন বাড়ছে তার সঙ্গে সঙ্গে সুস্থতার হারও বাড়তে শুরু করেছে। মঙ্গলবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ৬০ হাজার ৯৭৫। অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ৬১ হাজার মানুষ। এক দিন আগেও আক্রান্তের সংখ্যা একই রকম ছিল। ভারতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩১ লাখ ৬৭ হাজার ৯৭৫। বর্তমানে করোনায় অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা প্রায় ৭ লাখের মতো। করোনা সংক্রমণে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৮৪৮ জনের। এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে প্রায় ৬০ হাজার। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত কয়েক দিনে ইতিবাচক দিক হলো করোনায় সুস্থতার হার বেড়েছে এবং মৃত্যুহারও কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৬ হাজার ৫৫০ জন করোনা রোগী সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। দেশটিতে এখন করোনা জয়ীর সংখ্যা ২৪ লাখের বেশি। ভারতে করোনা থেকে সুস্থতার হার ৭৫ দশমিক ৯২ শতাংশ। অন্যদিকে করোনা থেকে মৃত্যুহার ২ শতাংশের নিচে নেমে গেছে। ভারতে করোনায় মৃত্যুহার বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক কম। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, করোনা পরীক্ষা অনেক বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here