মক্কা-মদিনার মসজিদে রমজানেও উপস্থিতি স্থগিত

0
513

দেওয়ানবাগ ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের বিস্তাররোধে পবিত্র রমজান মাসেও সৌদি আরবের মক্কার মসজিদুল হারাম ও মদিনার মসজিদে নববীতে সর্বসাধারণের জন্য তারাবিহসহ পাঁচ ওয়াক্ত নামাজে উপস্থিতি স্থগিত থাকবে। সোমবার রাতে দেশটির হারামাইন ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ড. আবদুর রহমান আস সুদাইস টুইটার ও ফেসবুকে এ তথ্য জানিয়েছেন। সৌদি স্বাস্থ্যবিষয়ক যৌথ কমিটির পরামর্শে জনস্বার্থ বিবেচনায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

ড. আবদুর রহমান আস সুদাইস জানান, কাবা শরিফ ও মদিনার মসজিদে নববিতে স্টাফদের নিয়ে তারাবিহ অনুষ্ঠিত হবে। এতে সাধারণ জনগণ উপস্থিত হতে পারবে না। তারাবিহ নামাজের রাকাআত সংখ্যা কমিয়ে ১০ রাকাত করা হয়েছে। ১০ রাকাত তারাবিহ এবং বিতর পড়া হবে।দুই জন সম্মানিত ইমাম তারাবিহ ও বিতর নামাজে ইমামতি করবেন। প্রথম ইমাম ৩ সালামে ৬ রাকাত নামাজ পড়াবেন। দ্বিতীয় ইমাম ২ সালামে ৪ রাকাত নামাজ, বিতরসহ সাফা তথা কুনুত (দায়া) পড়াবেন। কুনুত তথা দোয়া সংক্ষিপ্ত আকারে অনুষ্ঠিত হওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

ইফতার: দুই পবিত্র মসজিদ মক্কা মসজিদে হারাম ও মদিনার মসজিদে নববিতে ইফতারের সম্মিলিত বিশাল আয়োজন বাতিল করা হয়েছে। তবে রোজাদারদের জন্য দুই মসজিদে ইফতার আয়োজনের পরিবর্তে মক্কা ও মদিনা শহরের চারদিকে ইফতারের বক্স সরবরাহ ও বিতরণ করা হবে।

ইতেকাফ: পবিত্র নগরী মক্কার মসজিদে হারাম ও মদিনার মসজিদে নববিতে এবার আর ইতেকাফ অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। এ দুই মসজিদে মুমিন মুসলমানের ইতেকাফে বসাকে বাতিল করা হয়েছে।

ওমরাহ: এবারের রমজানেও ওমরাহ বন্ধ থাকবে। শুধু রমজানেই নয়, পুনরায় নোটিশ দেয়ার আগ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে ওমরাহ।

পুরো কুরআন পড়া হবে: এবারও পুরো কুরআন পড়া হবে। তবে তা পরিপূর্ণ করতে তারাবিহ ও তাহাজ্জুদ মিলিয়ে পূর্ণ করা হবে। কুরআন পড়া (খতম) পরিপূর্ণ করতে প্রথম রমজান থেকে ২৯ রমজানের রাত পর্যন্ত তারাবিহ ও তাহাজ্জুদ অনুষ্ঠিত হবে।মক্কা ও মদিনায় তারাবিহ ও তাহাজ্জুদের অংশগ্রহণকারীদের নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা অব্যাহত থাকবে।জানাজায় অংশগ্রহণকারীরাও এ স্বাস্থ্য পরীক্ষার আওতায় থাকবে। অর্থাৎ যারা জানাজায় অংশগ্রহণ করবে তাদেরকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার পরই জানাজায় অংশগ্রহণ করতে হবে।

উল্লেখ্য, মক্কা ও মদিনা উভয় শহরেই বর্তমানে ২৪ ঘণ্টার কারফিউ চলমান রয়েছে।

সৌদি আরবের নাগরিক এবং অভিবাসীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য বিভিন্ন প্রদেশের প্রবেশ মুখে সবাইকে প্রাথমিক করোনা টেস্ট করা হচ্ছে। করোনা প্রতিরোধে সৌদি স্বাস্থ্যকর্মীরা মাঠপর্যায়ে শ্রমিক ক্যাম্প এবং বাসাবাড়িতে গণহারে করোনা পরীক্ষা করছেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী তৌফিক আল রাবিয়া এক বিবৃতিতে বলেছেন, এ কারণেই দেশটিতে বর্তমানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here