মাত্র ৮০ জনের তাবারুক ৫শত লোক খেলো

0
289
সূফী সম্রাট হযরত সৈয়দ মাহ্বুব-এ-খোদা দেওয়ানবাগী (মা. আ.) হুজুর কেবলাজান ।

আশেকে রাসুল সৈয়দ হাসান আলী, নরসিংদী জেলার অধিবাসী। ২০০৩ সালের ১৫ ডিসেম্বর তিনি তার বাড়িতে আশাকে রাসুল (সা.) মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেন। এ উপলক্ষ্যে ৮০ জন লোকের তাবারুকের ব্যবস্থা করেন। আল্লাহ্র অপার দয়ায় বরকতময় এ মাহফিলে সম্পূর্ণ অপ্রত্যাশিতভাবে প্রায় ৫শত লোকের সমাগম ঘটে। তিনি বিচলিত হয়ে পড়েন। আশেকে রাসুল হাসান আলী তখন মোরাকাবায় তার মহান মোর্শেদ যুগের ইমাম, মোহাম্মদী ইসলামের পুনর্জীবনদানকারী, পূর্ণিমার চাঁদে বাবা দেওয়ানবাগীর চেহারা মোবারক স্মরণ করে তাঁর অসিলা ধরে আল্লাহর সাহায্য প্রার্থনা করেন। তখন মহান মোর্শেদ বাবা দেওয়ানবাগী রূহানিতে তার সামনে হাজির হয়ে তাকে অভয় দিয়ে বলেন- ‘তোমর চিন্তার কোনো কারণ নেই। তাবারুকে বরকত হবে। হযরত রাসুল (সা.)-এর শানে মিলাদ পড়লে বরকত হয়।’ মহান মোর্শেদের এ অভয়বাণী শুনে তিনি তখন আশ^স্ত হলেন এবং খুশি হয়ে দরবার শরীফে মানত করলেন। মিলাদ মাহফিল শেষ হলো। যথাসময়ে তাবারুক বিতরণ শুরু করেলন। মহান রাব্বুল আলামিনের অপার দয়ায় উপস্থিত প্রায় ৫শত লোকের সবাইকে তাবারুক দেওয়া হলো। প্রত্যেকেই তৃপ্তি সহকারে আহার করেন। তারপরও প্রায় ৮০ জনের তাবারুক বেশি হয়। অর্থাৎ যা রান্না করা হয়েছিল, পাঁচশ লোক খাওয়ার পরও তা পূর্বের মতই রয়ে গেল।
এই ঘটনাটির মাধ্যমে প্রমাণিত হয় যে, হযরত রাসুল (সা.)-এর রেখে যাওয়া এ বরকতের ইসলামই মোহাম্মদী ইসলাম, যা বর্তমানে দেওয়ানবাগ শরীফ থেকে প্রচারিত হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here