সাড়ে ৬ কোটি মানুষের মাসিক ভাতা প্রয়োজন

0
228

অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশের মানুষকে নগদ সহায়তা দেওয়া জরুরি বলে মত দিয়েছে জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি)। সংস্থাটি বলছে, করোনার প্রকোপ থেকে রক্ষা করতে বাংলাদেশের ৪০ শতাংশ মানুষকে প্রতি মাসে ন্যূনতম ২৫ ডলার নগদ ভাতা দেওয়া জরুরি; যা টাকার অঙ্কে প্রায় ২১০০ টাকা। শুধু নগদ অর্থ নয়, পাশাপাশি মানুষের চাকরি বাঁচানো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প খাতে সহায়তা বাড়ানো, প্রান্তিক মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধির উদ্যোগ নেওয়ার কথাও বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ‘টেম্পরারি বেসিক ইনকাম : প্রোটেক্টিং পুওর অ্যান্ড ভালনারেবল পিপল ইন ডেভেলপিং কান্ট্রিজ’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে এ সুপারিশ করেছে ইউএনডিপি।

কয়েক মাস ধরে বিশ্বের ৬০টি দেশের আর্থসামাজিক অবস্থার ওপর কভিড-১৯-এর প্রভাব নিয়ে সমীক্ষা চালিয়ে এ প্রতিবেদন তৈরি করেছে ইউএনডিপি। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের ৬ কোটি ৫৩ লাখের বেশি গরিব মানুষের নগদ সহায়তা দরকার; যা দেশের মোট জনগোষ্ঠীর ৪০ শতাংশের কিছুটা বেশি। এসব দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে প্রতি মাসে ২৫ ডলার করে ভাতা দিলে সরকারের প্রায় ১৪ হাজার কোটি টাকা খরচ হতে পারে। করোনার কারণে বিশাল জনগোষ্ঠীর উপার্জনের পথ প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। ১৩২টি উন্নয়নশীল দেশের ২৭০ কোটি মানুষের নগদ সহায়তা দরকার উল্লেখ করে প্রতিবেদনে বলা হয়, এসব মানুষকে তাদের মাসের মূল আয়ের বন্দোবস্ত করতে হবে। এতে প্রতি মাসে প্রায় ২০ হাজার কোটি ডলারের সমপরিমাণ অর্থ ব্যয় হবে।  ইউএনডিপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নগদ সহায়তা দেওয়ার এ ব্যবস্থা বেশ কার্যকর এবং তা দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে। কারণ, এখন মহামারী মারাত্মক আকার ধারণ করছে। এখন প্রতি সপ্তাহে সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা ১৯ লাখ ছাড়িয়ে যাচ্ছে। বেশির ভাগ সংক্রমণ হচ্ছে উন্নয়নশীল দেশগুলোতে। এসব দেশের প্রতি ১০ জন শ্রমিকের সাতজনই অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতে কাজ করেন। তাদের ঘরে বসে আয় করার উপায় নেই।

ইউএনডিপি তাদের প্রতিবেদনে দক্ষিণ এশিয়ার পরিস্থিতি তুলে ধরে বলছে, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে ভারতের পরই বাংলাদেশের বেশি মানুষ ঝুঁকিতে আছে। জনসংখ্যার আনুপাতিক হিসাবেও ভারতের পরে বাংলাদেশের মানুষ ঝুঁকিতে আছে। ভারতের প্রায় ৬৬ কোটি গরিব মানুষকে প্রতি মাসে ২৮ ডলার করে ভাতা দেওয়া দরকার বলে মনে করে সংস্থাটি। ভারতের মোট জনগোষ্ঠীর ৫০ শতাংশের বেশি মানুষকে এ ভাতা-সুবিধায় আনার সুপারিশ করেছে ইউএনডিপি। পাকিস্তানের ৫ কোটি ১৭ লাখ গরিব মানুষকে মাসিক ১৮ ডলার করে ভাতা-সুবিধায় আনার কথা বলা হয়েছে। এতে পাকিস্তান সরকারের খরচ হবে ৯৩ কোটি ডলারের বেশি। পাকিস্তানের এক-চতুর্থাংশ মানুষকে এ সুবিধা দিতে হবে। নেপালের প্রায় এক কোটি গরিব মানুষকে মাসে প্রায় ২৪ ডলার করে নগদ সহায়তা দেওয়া জরুরি। এতে নেপাল সরকারের প্রতি মাসে খরচ হবে সাড়ে ২২ কোটি ডলার। শ্রীলঙ্কার মোট জনগোষ্ঠীর প্রায় ১০ শতাংশ বা ২০ লাখ গরিব মানুষকে ভাতা দেওয়া জরুরি বলে মনে করে ইউএনডিপি। প্রতি মাসে তাদের ১৮ ডলার করে দিলে খরচ হবে সাড়ে ৩ কোটি ডলার। ভুটানের ৬০ হাজার দরিদ্র মানুষকে প্রতি মাসে প্রায় ২০ ডলার করে দেওয়ার কথা বলেছে ইউএনডিপি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here